সিটিজেন চার্টার

১ .ভিশন  ও মিশন
ভিশন:
বাংলাদেশের জ্বালানী চাহিদা পূরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার জন্য কয়লা উৎপাদন।
মিশন:
দেশের প্রাথমিক জ্বালানি প্রাকৃতিক গ্যাসের বিকল্প কয়লা সম্পদ উন্নয়ন।
কয়লা উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ।
কয়লা উৎপাদনে পরিবেশ ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য সচেষ্ঠ থাকা।

ভূমিকাঃ

বিদ্যুৎ উৎপাদনকে সবোর্চ্চ অগ্রাধিকার প্রদান করে বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিঃ উৎপাদিত কয়লা, খনি সংলগ্ন পিডিবি’র বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সরবরাহ করা হয়।
বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি সম্পূর্ণ কয়লা ব্যবহার করতে না পারলে এর জন্য কিছু কয়লা মজুদ রেখে অবশিষ্ট কয়লা স্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান, ইট প্রস্তুত কারখানা, চা বাগান ও অন্যান্য ব্যবহারকারীগণের নিকট বিক্রয় করা হয়। পিডিবি ব্যতীত অন্যান্য ক্রেতাগণের নিকট কয়লা বিক্রয়ের ক্ষেত্রে বিক্রয়যোগ্য কয়লার পরিমাণ, মূল্য নির্ধারণ, মূল্য পরিশোধের ধরণ এবং অন্যান্য শর্তাদি কোম্পানীর পরিচালনা পর্ষদ কর্তৃক নির্ধারিত হয়। আবহাওয়াগত কারণে অন্যান্য গ্রাহকগণের কয়লা চাহিদা ব্যাপকভাবে হ্রাস বৃদ্ধি হয়। আমদানীকৃত কয়লার ট্যারিফ, গুণগতমান, সরকারী বিধিবিধান ইত্যাদি কারণেও কয়লার চাহিদা কম-বেশী হয়। এছাড়াও খনি হতে পূর্ণক্ষমতায় কয়লা উৎপাদিত হলে বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র সম্পূর্ণ কয়লা ব্যবহার করতে পারে না এবং অপ্রত্যাশিত কারণে উৎপাদন দীর্ঘকাল বন্ধ থাকলে বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে কয়লা সরবরাহ বিঘিœত হতে পারে। অপরদিকে অতিরিক্ত কয়লা অনেকদিন কোল ইয়ার্ডে মজুদ রাখলে তা স্বতঃস্ফূর্ত জ্বলন -এর ফলে কয়লা পুড়ে যাওয়া সহ মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ এ সকল বিষয়গুলো বিবেচনা করে সময় সময় অন্যান্য গ্রাহকগণের নিকট কয়লা বিক্রয়ের প্রস্তাব পরিচালনা পর্ষদের নিকট পেশ করে। পরিচালনা পর্ষদ সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে পিডিবি ব্যতীত অন্যান্য ক্রেতাগণের নিকট কয়লা বিক্রয়ের অনুমোদন প্রদান করে।

১.সেবা প্রদান প্রতিশ্রুতি

ক্রঃ নং সেবার নাম সেবা প্রদান পদ্ধতি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং প্রাপ্তিস্থান সেবার মূল্য এবং পরিশোধ পদ্ধতি সেবা প্রদানের সময়সীমা দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা (নাম, পদবী, ফোন নম্বর ও ই-মেইল)
কয়লা বিক্রয় ১)কোম্পানি হতে দেশের বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় কয়লা বিক্রয় সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারী করা হবে। উক্ত বিজ্ঞপ্তিতে সাধারণত প্রতি টন কয়লার মূল্য, একজন ক্রেতার নিকট বিক্রয়তব্য কয়লার পরিমাণ, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ইত্যাদি উল্লেখ থাকে। (** কয়লার মজুদ হ্রাস/বৃদ্ধি সাপেক্ষে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ কর্তৃক মূল্য হ্রাস/বৃদ্ধি হলে নির্ধারিত মূল্যে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে সাধারণ বিজ্ঞাপন প্রদান করা হয়ে থাকে। তবে কয়লার পর্যাপ্ত মজুর থাকলে এবং মূল্য হ্রাস/বৃদ্ধি করা না হলে সাধারণ বিজ্ঞাপন প্রদান করা হয় না। এই ক্ষেত্রে ক্রেতা কোম্পানির বিক্রয় ও বিপণন শাখায় যোগাযোগ করে কয়লা ক্রয় করতে পারবেন।) ২) বিজ্ঞপ্তি জারীর পর ক্রেতা (স্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান, ইটভাটা, চা বাগান ও অন্যান্য ব্যবসায়ীগণ) নিজস্ব লেটার হেড প্যাডে বিজ্ঞপ্তিতে বর্ণিত শর্তের আলোকে মহাব্যবস্থাপক (অর্থ ও হিসাব) বরাবরে ক্রয়তব্য কয়লার পরিমাণ উল্লেখপূর্বক আবেদন করবেন। ৩) উক্ত আবেদনে মহাব্যবস্থাপক (অর্থ ও হিসাব) অথবা উক্ত বিভাগের যথাযথ কর্মকর্তার স্বাক্ষরসম্বলিত একটি ফটোকপি ক্রেতাকে প্রদান করা হবে। ৪) ক্রেতা স্বাক্ষর সম্বলিত আবেদনের উক্ত কপি বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিমিটেড এর নামে খোলা হিসাব সংশ্লিষ্ট নি¤œবর্ণিত তফসিল ব্যাংকসমূহে প্রদর্শনপূর্বক কয়লার জন্য বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত মূল্য (ভ্যাট/আয়কর/শুল্ক ও লোডিং চার্জসহ) ডিডি/পে-অর্ডারের মাধ্যমে অগ্রীম জমা প্রদান করবেনঃ (ক) জনতা ব্যাংক লিমিটেড, ফুলবাড়ী বাজার শাখা, দিনাজপুর; (খ) অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, ফুলবাড়ী শাখা, দিনাজপুর; (গ) পূবালী ব্যাংক লিমিটেড, ফুলবাড়ী শাখা, দিনাজপুর; (ঘ) সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি প্রকল্প শাখা, পার্বতীপুর, দিনাজপুর; (ঙ) সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, দিনাজপুর কর্পোরেট শাখা, দিনাজপুর; (চ) আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেড, কাওরান বাজার শাখা, ঢাকা; ৫) ক্রেতা কয়লার মূল্য বাবদ টাকা জমা প্রদানের রশিদ কোম্পানির বিক্রয় ও বিপণন শাখায় দাখিল করবে। ৬) কোম্পানি সংশ্লিষ্ট ব্যাংক হতে টাকা জমার প্রত্যয়ণ পত্র (ব্যাংক ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট) গ্রহণ করবে। ৭) ব্যাংক ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রাপ্তি সাপেক্ষে ক্রেতার অনুকূলে কয়লার সরবরাহ আদেশ পত্র (ডিও লেটার) ইস্যু করা হবে। ৮) কোম্পানি কর্তৃক ডিও লেটার ইস্যুর পর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ক্রেতাকে কয়লা ডেলিভারি গ্রহণ করতে হবে। ৯) ক্রেতা কয়লা সরবরাহ গ্রহণকালে তাঁর নামে ইস্যুকৃত ডিও লেটার (ক্রেতার কপি) কোম্পানির কোল ইয়ার্ডে স্থাপিত কোল স্কেলে কর্মরত কর্মকর্তার নিকট প্রদর্শন করবেন। ১০) কয়লা পরিবহনের জন্য ক্রেতা নিজ দায়িত্বে পরিবহণ (ট্রাক, রেল-এর বগি ও অন্যান্য) ব্যবস্থা করবেন। ১১) কোম্পানির কোল ইয়ার্ডে কয়লা যেখানে যে অবস্থায় আছে সে অবস্থায় কয়লা ডেলিভারি গ্রহণ করতে হবে। ১২) ক্রেতাকে সম্পূর্ণ নিজ খরচ ও দায়িত্বে কয়লা পরিবহণ ও আনলোড করতে হবে। ১৩) যদি কোন ক্রেতার ডেলিভারি আদেশে উল্লিখিত কয়লার আংশিক ডেলিভারি প্রদানের পর মজুদ শেষ হয়ে যায়, তবে অবশিষ্ট কয়লার বিপরীতে পরিশোধিত অর্থ ক্রেতাকে বিনা সুদে ফেরত দেয়া হবে। ১৪) নির্ধারিত সময়ে কয়লার ডেলিভারি গ্রহণ না করলে পরবর্তী প্রতি দিনে প্রতি কোম্পানি কর্তৃক নির্ধারিত হাওে জরিমানা ধার্য্য হবে। এ সুযোগ প্রতি ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩০ দিন পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। জরিমানাসহ ডেলিভারি গ্রহণের জন্য নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে সমুদয় কয়লা সরবরাহ নিতে ব্যর্থ হলে বিসিএমসিএল কর্তৃপক্ষ অবশিষ্ট কয়লার পরিশোধিত অর্থ বাজেয়াপ্ত করতে পারবে। এ ক্ষেত্রে জারিকৃত ডেলিভারি আদেশটি বাতিল বলে গণ্য হবে। ১৫) কয়লার ডেলিভারি আদেশে নির্ধারিত সময়ের পর কোন প্রকার দূর্ঘটনাজনিত ক্ষয়ক্ষতি ঘটলে তার দায় দায়িত্ব সম্পূর্ণ ক্রেতাকে বহন করতে হবে। ১)বৈধ ট্রেড লাইসেন্স। ২)প্রযোজ্য ক্ষেত্রে পরিবেশ ছাড়পত্র। ৩)ব্যক্তি/প্রতিনিধির ০২ কপি পাসপোর্ট সাইজ রঙ্গিন ছবি ও জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপিসহ মহাব্যবস্থাপক (অর্থ ও হিসাব) বরাবরে আবেদন করতে হবে। ৪)কয়লার মূল্য (ভ্যাট/ট্যাক্স/শুল্ক ও লোডিং চার্জসহ) বাবদ অর্থ ব্যাংক হিসাবে জমা দানের রশিদ। ৫)বোর্ড সিদ্ধান্তের আলোকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের যে কোন প্রকার সংযোজন/বিয়োজন/সংশোধন করা হলে সেই সকল কাগজপত্র। বোর্ড কর্তৃক উপরোক্ত সংযোজন/বিয়োজন/ সংশোধন করা হলে তা পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে। বিক্রয়যোগ্য কয়লার মূল্য, পরিমাণ ও বিক্রয় পদ্ধতি কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ কর্তৃক অনুমোদিত হয়। কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ কর্তৃক অনুমোদিত কয়লার মূল্য (বর্তমান মূল্য ৯,০০০/- টাকা)-এর সাথে সরকার নির্ধারিত ভ্যাট/ট্যাক্স/শুল্ক এবং কোম্পানি কর্তৃক নির্ধারিত কয়লা লোডিং চার্জ (বর্তমানে ৬১/- টাকা, যা পরিবর্তনযোগ্য) কোম্পানির ব্যাংক হিসাবে অগ্রীম হিসাবে জমা দিতে হবে এবং টাকা জমাদানের রশিদ কোম্পানির বিক্রয় ও বিপণন শাখায় দাখিল করতে হবে। (কয়লার মূল্য পরিশোধের বিষয়টি কোম্পানি কর্তৃক নিশ্চিত হওয়ার পরই কেবল কয়লার ডিও লেটার ইস্যু করা হবে।) নির্ধারিত সময়ে কয়লার ডেলিভারি গ্রহণ না করলে পরবর্তী প্রতি দিনে প্রতি মেট্রিক টন ২৫/- টাকা হারে জরিমানা ধার্য্য হবে। এ সুযোগ প্রতি ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩০ দিন পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। জরিমানাসহ ডেলিভারি গ্রহণের জন্য নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে সমুদয় কয়লা সরবরাহ নিতে ব্যর্থ হলে বিসিএমসিএল কর্তৃপক্ষ অবশিষ্ট কয়লার পরিশোধিত অর্থ বাজেয়াপ্ত করতে পারবে। এ ক্ষেত্রে জারিকৃত ডেলিভারি আদেশটি বাতিল বলে গণ্য হবে। ক) ব্যাংকে কয়লার মূল্য জমা প্রদানের লক্ষ্যে আবেদন পূর্বক যথাযথ কর্মকর্তার স্বাক্ষর সম্বলিত আবেদনের কপি সংগ্রহ – ১ ঘন্টা। খ) ক্রেতা কর্তৃক কয়লার মূল্য জমা প্রদানের পর কোম্পানি কর্তৃক ব্যাং ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রাপ্তি সাপেক্ষে ডিও লেটার ইস্যু করণ- পরবর্তী দিন। গ) ডিও লেটার ইস্যুর পর কয়লা ডেলিভারি গ্রহণের সময়সীমা – ১) ১০০-৫০০ মে. টন -১৫-২০ কার্য দিবস। ২) ৫০১-২০০০ মে.টন – ২৫-৩০ কার্য দিবস। ৩) ২০০১-৫০০০ মে. টন – ৩৫-৪০ কার্য দিবস। ঘ) জরিমানাসহ কয়লা ডেলিভারি গ্রহণের সর্বোচ্চ সময়সীমা ৩০ দিন। জরিমানাসহ ডেলিভারি গ্রহণের জন্য নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে সমুদয় কয়লা সরবরাহ নিতে ব্যর্থ হলে বিসিএমসিএল কর্তৃপক্ষ অবশিষ্ট কয়লার পরিশোধিত অর্থ বাজেয়াপ্ত করতে পারবে। এ ক্ষেত্রে জারিকৃত ডেলিভারি আদেশটি বাতিল বলে গণ্য হবে। মোঃ কামরুল হাসান, ব্যবস্থাপক (সেলস এন্ড রেভিনিউ), মোবাইল- ০১৭১২১৯৮০৭০ ই-মেইল- mktbcmcl@gmail.com অফিসের ঠিকানা- বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিমিটেড চৌহাটি, পার্বতীপুর, দিনাজপুর।

২. প্রাতিষ্ঠানিক সেবা

ক্রঃ নং সেবার নাম সেবা প্রদান পদ্ধতি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং প্রাপ্তিস্থান সেবার মূল্য এবং পরিশোধ পদ্ধতি সেবা প্রদানের সময়সীমা দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা (নাম, পদবী, ফোন নম্বর ও ই-মেইল)
বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে (বিপিডিবি) এর অধীনে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে কয়লা বিক্রয়। বিদ্যুৎ উৎপাদনকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রদান করে বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিমিটেড (বিসিএমসিএল) এর উৎপাদিত কয়লা বিপিডিবির কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সরবরাহ করা হয়। মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে প্রস্তাব পাওয়ার পর বিদ্যমান বিধি/বিধান অনুসরনপূর্বক কয়লা উৎপাদনের বিষয়ে যাচাই বাচাই করে বিসিএমসিএল-এর পরিচালনা পর্ষদের সুপারিশক্রমে জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিভাগের অনুমোদনক্রমে কয়লা বিক্রয় করা হয়। ১) মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আবেদন। ২) বিদ্যুৎ বিভাগের সম্মতি ৩) বিসিএমসিএল-এর পরিচালনা পর্ষদের কাগজপত্র ৪) জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সম্মতি ১)কয়লার উৎপাদন খরচ, খনি উন্নয়ন ও আধুনিকায়ন ব্যয়, কয়লার গুনগত মান, তাপ উৎপাদন ক্ষমতা, সরকারি কোষাগারে প্রদেয় রয়্যালটি, ট্যাক্স/ ভ্যাট ইত্যাদি বিষয়গুলো বিবেচনা করে বিসিএমসিএল পরিচালনা পর্ষদ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে সরবরাহকৃত কয়লার মূল্য সুপারিশ করবে। পরিচালনা পর্ষদের সুপারিশের আলোকে জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিভাগ কয়লার মূল্য নির্ধারন করবে। ২)সরকারি বিধি মোতাবেক কয়লা ক্রয়কৃত প্রতিষ্ঠান ট্যাক্স/ভ্যাট অন্যান্য শুল্ক পরিশোধ করবে। ৩)প্রতি মাসে সরবরাহকৃত কয়লার পরিমানের বিপরীতে বিসিএমসিএল পরবর্তী মাসের ১০ তারিখের মধ্যে ইনভয়েস প্রেরণ করবে। ৪)ইনভয়েস দাখিলের ৩০ দিনের মধ্যে বিল পরিশোধ করবে। ৫)নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বিল পরিশোধ না করলে বিলম্বিত সময়ের জন্য মোট বিলের উপর মাসিক/এর খন্ডাংশের জন্য ২% হারে সারচার্জ প্রদান করতে হবে। ১) বিদ্যুৎ উৎপাদনকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রদান করে ৩০ দিনের প্রয়োজনীয় কয়লা নিজস্ব কোল ইয়ার্ডের মজুদ রাখবে। মোঃ কামরুল হাসান, ব্যবস্থাপক (সেলস এন্ড রেভিনিউ), মোবাইল- ০১৭১২১৯৮০৭০ ই-মেইল- mktbcmcl@gmail.com অফিসের ঠিকানা- বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিমিটেড চৌহাটি, পার্বতীপুর, দিনাজপুর।